27 February 2017
g+ tw Chapaibarta Faceook Page
Chapaibarta.com


ফেসবুকে ৯৭ জন হারিয়ে যাওয়া শিশু-কিশোরীর পরিবারের সন্ধান চালাচ্ছে বিদ্যানন্দ

Published:  5 September 2016
ফেসবুকে ৯৭ জন হারিয়ে যাওয়া শিশু-কিশোরীর পরিবারের সন্ধান চালাচ্ছে বিদ্যানন্দ

 "ছোট বোনকে খুঁজতে গিয়ে হারিয়ে যায় সুলতানা। রুবিনার (ছদ্ম নাম) পালক পিতা যৌন নির্যাতন করার চেষ্টা করলে সে পালিয়ে যায়। ঘর থেকে নানাবাড়ি যেতে পথ হারিয়ে ফেলে শারমিন। শিশু মারুফাকে বাসস্ট্যান্ডে দাঁড় করিয়ে রেখে ফিরে নি তাঁর বাবা। খেলা শেষে বাসার ঠিকানা ভুলে যায় শাম্মি। আর পাখি, মাজেদা বাক প্রতিবন্ধী বলে ঠিকানা বলতে পারছে না।" এমন ৯৭ জন হারিয়ে যাওয়া শিশু-কিশোরীর পরিবারের সন্ধান চলছে ফেসবুকে। অনেক আমলাতান্ত্রিক জটিলতা কাটিয়ে সরকারী হেফাজত থেকে বিদ্যানন্দ নামের এক ভলান্টিয়ার গ্রুপ এই ৯৭টা কুড়িয়ে পাওয়া শিশুর তথ্য আর ছবি তুলে এনেছে। সে সব ছবি ফেসবুকে প্রচার করে শিশু-কিশোরীর পরিবারের সন্ধান চালাচ্ছে বিদ্যানন্দ নামের এক ভলান্টিয়ার গ্রুপটি । ভলান্টিয়ার গ্রুপটি পরিবারের সন্ধান করে এসব শিশুদের আইনি প্রক্রিয়ায় এবং ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে ফিরিয়ে দিতে চায়  তাদের পরিবাবারের কাছে। ইতিমধ্যে ফেসবুকের কল্যাণে সফলতা পেয়েছে এই মহান উদ্যোগটি।

এ ব্যাপারে ফেসবু্কে অত্যন্ত জনপ্রিয় ব্যক্তি আরিফ আর হোসেন উদ্যোগটি সফল করতে ফেসবুকে তাদের ছবিসহ পোস্ট আহবান জানিয়ে লিখেছেন , সাহায্য চাই আপনাদের। ছড়িয়ে পড়ুক আনাচে কানাচে ছবিগুলো। আপনি আপনার ঈদের খরচ থেকে ১০০ টাকা বাঁচিয়ে পাশের ষ্টেশনারী দোকান থেকে ৫/১০ কপি প্রিন্ট করে আপনার এলাকায় লাগিয়ে দিতে পারেন বা, সেটাও না পারলে ১ কপি অন্তত প্রিন্ট করে আপনার নিকটস্থ থানায় দিয়ে আসতে পারেন।

এছাড়া বিদ্যানন্দ তাদের ফেসবুক পেজে লিখেছে ,অনেক কষ্টে এঁদের ছবি এবং তথ্য সংগ্রহের অনুমতি পেয়েছি সরকারী এই প্রতিষ্ঠানে। এবার যদি অসফল হই, তবে এঁদের এখানে আটকে থাকতে হবে ১৮ বছর পর্যন্ত। ঈদের পরের ইভেন্টে আমরা আর পুরাতন মুখগুলো দেখতে চাই না, চাই না তাঁদের আরো ৩৬৫ দিন হারিয়ে যাক এই বন্ধী জীবনে?? এই শিশুদের পরিবারের কেউ না কেউ এই ফেসবুকেই আছে, হয়তো আপনার ফ্রেন্ড লিস্টেই আছে। আপনার এক শেয়ারে হয়তো তাঁরা আবার আশার আলো খুঁজে পাবে, যারা সন্তানের খারাপ পরিণতি ধরে নিয়ে ফিরে গিয়েছে তাঁদের স্বাভাবিক জীবনে।

সর্বশেষ খবর