পিকআপের ধাক্কায় ছাত্রী নিহত

  • Date: August 4, 2018
  • cat
  • | Post By: চাঁপাই বার্তা.কম (M)

বার্তা ডেস্কঃ নিরাপদ সড়কের দাবিতে দেশজুড়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই গতকাল শুক্রবার টাঙ্গাইলের সখীপুরে হেলপারচালিত পিকআপভ্যানের ধাক্কায় নিহত হয়েছে দশম শ্রেণির এক ছাত্রী। প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে নিহত ছাত্রীর সহপাঠী ও এলাকাবাসী। একই দিন ঢাকার ধামরাইয়ে দুটি বাসের সংঘর্ষে ৪ যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩০ জন। আহতদের মধ্যে পাঁচজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সখীপুর থানার ওসি এসএম তুহিন আলী জানান, সকাল ১০টার দিকে সখীপুর-সাগরদীঘি সড়কের বেলতলী এলাকায় ট্রাকচাপায় নিহত হয় দশম শ্রেণির ছাত্রী সাদিয়া আক্তার (১৫)। সে ওই এলাকার ব্যবসায়ী আজহারুল ইসলামের মেয়ে এবং স্থানীয় বড়চওনা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী ছিল।

ওসি জানান, সকালে খালার বাড়ি থেকে হেঁটে বাড়ি আসার সময় বেলতলী এলাকায় বেপরোয়া গতির ট্রাকটি সাদিয়াকে চাপা দিলে সে গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে দুুপুর ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার পর এলাকাবাসী হেলপার তানবীরকে (১৪) আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় জানিয়ে ওসি তুহিন আরো বলেন, ছেলেটি মাদকাসক্ত হিসেবে পরিচিত। ট্রাকের মালিক আবদুর রাজ্জাক বিপ্লব পলাতক। তাকেও আটকের চেষ্টা চলছে।

এদিকে, দুর্ঘটনায় ছাত্রী নিহত হওয়ার পর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও এলাকাবাসী ‘নিরাপদ সড়ক চাই, দুর্ঘটনার বিচার চাই’ স্লোগান দিয়ে টায়ার জ্বালিয়ে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত সখীপুর-সাগরদীঘি সড়ক অবরোধ করে রাখে। সখীপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ছবুর রেজা বলেন, যারা মাদকাসক্ত হেলপারের হাতে ট্রাক তুলে দিয়েছে আমরা তারও বিচার চাই।

ধামরাইয়ে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের জয়পুরা বাসস্ট্যান্ডের কাছে দুটি বাসের সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনা ঘটে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানায়, শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আরিচার দিক থেকে আসা সূর্যমুখী পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা সেতু পরিবহনের একটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজন মারা যায়। হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান আরো একজন। এ ছাড়া দুই বাসের আরো ৩০ যাত্রী আহত হয়। তাদের উদ্ধার করে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ আশপাশের বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে আশঙ্কাজনক ৫ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ধামরাই ফায়ার সার্ভিসের ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর সাহেব আলী বলেন, খবর পেয়ে তাদের একটি দল দ্রুত দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধারকাজ শুরু করে।

ধামরাই থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জুলফিকার হায়দার দুর্ঘটনায় ৪ জন নিহত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হবে।

বাংলাদেশেরখবর/জেডএইচএমএম/চাঁপাইবার্তা.কম।।

এই বিভাগের সর্বশেষ খবর