ইস্যু তৈরি করতে কার্লাইলের দিল্লি সফরে নিষেধাজ্ঞার ছক কষে বিএনপি নেতারাই

ভিসা না পাওয়ায় আটকে গেছে ব্রিটিশ আইনজীবী এবং খালেদা জিয়ার আইনী পরামর্শক লর্ড কার্লাইলের ভারত সফর। দিল্লির ‘ফরেন করেসপন্ডেটস ক্লাব’(এফসিসি) ১৩ জুলাই কার্লাইলের প্রস্তাবিত সংবাদ সম্মেলনটি বাতিল করে দিয়েছে। ক্লাব কর্তৃপক্ষ তাকে জানিয়েছেন, কার্লাইলের পক্ষে দিন বদল করা সম্ভব হলে অন্য কোনো দিন সংবাদ সম্মেলনের জন্য আয়োজন করা যেতে পারে।

প্রশ্ন উঠেছে, কার্লাইলের ভারত সফরের দিনক্ষণ ঠিক হওয়ার পরেও কেনো প্রস্তাবিত সংবাদ সম্মেলন আটকে গেলো? এফসিসির একজন কর্মকর্তার মাধ্যমে জানা গেছে, সম্প্রতি বিএনপি নেতারা দিল্লি সফরে এফসিসির সংশ্লিষ্ট কর্তাব্যক্তিদের সাথে কার্লাইলের ভারত সফর নিয়ে ইস্যু তৈরি করতেই এমনই ছক কষেছিলেন।

প্রসঙ্গত, বিএনপি নেতারা জানতেন, ভারতের মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিম এবং তার ডান হাত হিসেবে পরিচিত ছোটা শাকিলের লন্ডনে অবস্থানের বিষয়েও এক সময় সহযোগিতা করেছিলেন লর্ড কার্লাইল। এমনকি দাউদ ইব্রাহিমের মতো মাফিয়া ডন ও তাদের দোসরদের ব্যাপারে ভারত সরকারের অবস্থান সবসময়ই কঠোর। ফলে কোনোভাবেই লর্ড কার্লাইলকে ভারতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না। ফলে প্রাথমিকভাবে ফরেন করেসপন্ডেটস ক্লাবের মাধ্যমে কার্লাইলের সংবাদ সম্মেলনের ঘোষণা এবং দিনক্ষণ ঠিক করার পর যখন দিল্লি ভিসা দিতে চাইবে না তখন সেটাকে একটি বড় ইস্যু হিসেবে ব্যবহার করে বাংলাদেশ সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ করা যাবে বলেই ছক কষা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে এফসিসি’র ওই কর্মকর্তা বলেন, এ বিষয় নিয়ে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে বৈঠক হলেও তাতে ক্লাবের সবাই ভিন্নমত পোষণ করে। কিন্তু ক্লাবের চেয়ারম্যান পরে সিদ্ধান্ত দেয় বিএনপি নেতাদের প্রস্তাবে সম্মতি দেয়ার কথা। সে মোতাবেক লর্ড কার্লাইলের দিল্লি সফরের দিন-তারিখও ঠিক হয়। পরে শুনেছি, চেয়ারম্যানের সঙ্গে নেতাদের একটি একান্ত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিলো। তবে বৈঠকে ঠিক কী কী বিষয়ে কথা হয়েছিলো তা অন্যান্যদের জানা নেই।

এদিকে, কার্লাইল ১৩ তারিখেই দিল্লিতে সংবাদ সম্মেলনে অনড় বলে জানা গেছে। সূত্র বলছে, এফসিসি না হলে দিল্লির অন্য কোথাও যাতে সংবাদ সম্মেলন করা যায় সে চেষ্টাও করা হচ্ছে। তা যদি ব্যর্থ হয় তবে তাকেও ইস্যু হিসেবে ব্যবহারের চিন্তাও করছে বিএনপি।

এই বিভাগের সর্বশেষ খবর