,


‘২০১৮ সালের বিশ্বকাপ জিতবে ব্রাজিল’

সাবেক কোচ দুঙ্গার সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় গেলো বছর ব্রাজিল জাতীয় দল থেকে বাদ পড়েন মার্সেলো। এতে শতবর্ষী কোপা আমেরিকা আসরেও খেলা হয়নি তার। অবশ্য এ টুর্নামেন্টে ভালো করতে পারেনি ব্রাজিল। গ্রুপপর্ব থেকেই বাদ পড়ে সেলেকাওরা।

ব্যর্থতার দায়ে বরখাস্ত হন দুঙ্গা। পরে কোচের দায়িত্ব নেন তিতে। দলে ফেরেন মার্সেলো, মাঝে দলকে নেতৃত্বও দেন। এখন খেলছেন নিয়মিত। এবার দলের হয়ে চূড়ান্ত লক্ষ্যের কথা জানালেন তিনি। বললেন, ২০১৮ বিশ্বকাপ জিতে ফুটবল বিশ্বে
সর্বোচ্চ পর্যায়ে ব্রাজিলিয়ান পতাকা ফের দেখতে চাই।

নতুন কোচের অধীনে স্বরূপে ফিরেছে ব্রাজিল। এরই মধ্যে বাছাইপর্বের গণ্ডি পেরিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত করেছে ৫বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। তবে চির-প্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনাকে বাছাইপর্বের গণ্ডি পেরোতে সংগ্রাম করতে হচ্ছে।

প্লেয়ার্স ট্রিবিউনে নিজের একটি লেখায় মার্সেলো জানান, গেলো একটি দশক কঠিন সময় পার করেছে ব্রাজিল। তবে তিতের অধীনে তা কাটিয়ে উঠেছি আমরা। তিনি যেভাবে দল গড়েছেন তাতে রাশিয়া বিশ্বকাপ আমাদের ঘরেই উঠবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

এ ব্রাজিলিয়ান তারকা ফুটবলার লেখেন, আমার চূড়ান্ত একটি লক্ষ্য আছে। ২০১৮ বিশ্বকাপে স্বমহিমায় ফিরতে যাচ্ছে ব্রাজিল। এটা লিখে রাখুন। এর ওপর স্ট্যাম্প মারুন। কাউকে মেইল করুন। আমি সত্যিই বিশ্বাস করি, তিতের অধীনে ফুটবল বিশ্বে ফের শীর্ষে ব্রাজিলকে ফেরাতে পারবো। ফের সেলেকাওদের বিজয়কেতন উড়বে।

এ লেফ্ট ব্যাক লেখেন, আমি আপনাদের বলতে পারি; তিতে অসাধারণ ব্যক্তিত্বসম্পন্ন মানুষ। তিনি দায়িত্ব নেয়ার সময় আমার সঙ্গে কথা হয়েছিল। উনি আমাকে বলেছিলেন, আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি না যে; তোমাকে ডাকবো। যদি ডাকি, তুমি কি ফিরবে? আমি বলেছিলাম, প্রফেসর; আপনি যে আমাকে ডাকছেনে এটাই আমার জন্য বড় আবেগের বিষয়।

বিশ্বের অন্যতম সেরা লেফ্ট ব্যাক হিসেবে বিবেচনা করা হয় মার্সেলোকে। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ৩টি চ্যাম্পিয়নস লিগ, ৪টি লা লিগা ও ২টি কোপা দেল রেসহ ১৭টি শিরোপা জিতেছেন। প্রায় ১ দশক ধরে খেলছেন বার্নাব্যুতে। আর ১৭ বছর বয়স থেকে খেলছেন ব্রাজিল দলে। রিয়ালের হয়ে অনেককিছু জিতলেও নিজ দেশের হয়ে এখনো কিছু জিততে পারেননি বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা ডিফেন্ডার।

তিনি বলেন, আমি ১৭ বছর বয়স থেকে ব্রাজিল জাতীয় দলে খেলছি। দেখতে দেখতে ১১ বছর কেটে গেছে। একটি বিশ্বকাপ ট্রফি আমার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যেনো একটি সোনার ট্রফি আমার দাদার কেবিনেটে রাখতে পারি সেজন্য আমি সবকিছু করতে প্রস্তুত।

ব্রাজিলের হয়ে এখন পর্যন্ত ৪৭টি ম্যাচ খেলেছেন মার্সেলো। তবে জাতীয় দলের নেতৃত্ব দিতে গিয়ে প্রায়ই খারাপ সময় গেছে তার। এখন খেলছেন স্রেফ লেফ্ট ব্যাক হয়ে। তিনি বলেন, তিতের ওই কলটি আমার জন্য ছিল অনেককিছু। এ প্রথমবার কোনো কোচ আমাকে কল দিলো। উনি আমার কাছে খুবই প্রিয় হয়ে উঠেছেন। তার জন্য আমি খুনও করতে পারি।