Dhaka, Sunday, August 20, 2017

Navigation Bottom Left
Navigation Bottom Right
Post page // Before Title
Post page // Before Title

পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু, নাচোল থানার ওসিসহ ৮ জনকে আসামি করে মামলা

বার্তা ডেস্কঃ নাচোল থানায় পুলিশি হেফাজতে রিমান্ডে নেয়া আসামি মাহফুজুর রহমানের মৃত্যুর ঘটনায় থানার ওসিসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা হয়েছে। নিহত মাহফুজুর রহমানের বড় ভাই শাহিনুর আলম বাদী হয়ে রোববার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালতে মামলাটি করেন। ২০১৩ সালের হেফাজত মৃত্যু (নিবারণ) আইনে মামলাটি করা হয়।

আসামিরা হল : নাচোল থানার ওসি আনোয়ার হোসেন, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আবদুল বারিক, এসআই আহসান হাবিব, ঘটনার দিনের ডিউটি অফিসার এসআই জহুরুল, এএসআই মো. সামসুল, ডিউটিরত কনস্টেবল চাঁনজারুল, রিমান্ডে নেয়া মামলার বাদী নাসির উদ্দিন এবং তার ভগ্নিপতি জাফর ইকবালসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজন।

মামলার আইনজীবী অ্যাডভোকেট আকরামুল ইসলাম জানান, মামলাটি এফআইআর হিসেবে গণ্য করে ব্যবস্থা গ্রহণ এবং তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এ ব্যাপারে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দিয়েছেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরিফুল ইসলাম। এ ছাড়া বিষয়টি আইজিপি ও রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজিকে অবহিত করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, মাহফুজকে রিমান্ডে নেয়ার পর পুলিশ তার ভাইয়ের কাছে ১ লাখ টাকা দাবি করে। কিন্তু ২০ হাজার টাকা দেয়া হয়। বাকি টাকা নিয়ে যথাসময়ে থানায় হাজির হতে না পারায় আসামির ওপর নির্যাতন চালোনো হয়। এতে মাহফুজ মারা যান। পরে পুলিশ তার লাশ হাজতখানার টয়লেটে ঝুলিয়ে আত্মহত্যার প্রচারণা চালায়। মামলার বাদী শাহিনুর আলম জানান, নাচোল থানা পুলিশ মামলা না নেয়ায় বাধ্য হয়ে আদালতে মামলা করেছেন তিনি। উল্লেখ্য, গত ২৬ জুলাই চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল থানায় পুলিশ হেফাজতে আসামি মাহফুজুর রহমানের মৃত্যু হয়। এর আগে ১৯ জুলাই নাচোলের একটি ক্লিনিকে স্কুলছাত্রী নাহিদাকে অপারেশন করে হত্যার দায়ে মাহফুজকে গ্রেফতার করা হয়। নাচোল থানার ওসি আনোয়ার হোসেনের দাবি, এইচএসসি পাস করা মাহফুজ একজন ভুয়া ডাক্তার।

Post Page // After Content
Post Page // After Content